Friday, 7 January 2011

ভারতের জন্য আশুগঞ্জে ২৪৬ কোটি টাকায় নদীবন্দর হচ্ছে : একনেকে প্রকল্প অনুমোদন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার

ভারতের পণ্য অভ্যন্তরীণ পরিবহনের সুবিধার্থে ২৪৬ কোটি টাকা ব্যয়ে আশুগঞ্জ নদীবন্দর নির্মাণ করছে বাংলাদেশ। কলকাতা থেকে ত্রিপুরা ও সেভেন সিস্টারে পণ্য পরিবহনের স্বার্থে আশুগঞ্জ কন্টেইনার নির্মাণে বাংলাদেশকে অনুদান দেয়ার কথা ছিল ভারতের। বাস্তবে প্রকল্পটি নির্মাণে বাংলাদেশ ব্যবহার করবে ভারতীয় ঋণ। প্রকল্প বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ২৪৬ কোটি টাকা। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে গতকাল প্রকল্পটি অনুমোদন দেয়া হয়েছে। সম্প্রতি ভারতের সঙ্গে সম্পাদিত ১ বিলিয়ন ঋণ চুক্তি থেকে এ প্রকল্পের ২১৯ কোটি টাকা ব্যয় করা হবে বলে সভায় জানানো হয়।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় এই প্রকল্প ছাড়াও ভারতীয় ঋণে বাংলাদেশ রেলওয়ের জন্য তিনটি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এই ৩টি প্রকল্পে ভারতীয় ঋণ ব্যবহার করা হবে ৯২৭ কোটি টাকা। বিমানের জ্বালানি পরিবহনের জন্য এয়ারব্রেক ইকুইপমেন্টসহ ১০০ এমজি বগি ট্যাংক ওয়াগন ও ৫টি এমজি ব্রেক ভ্যান সংগ্রহ প্রকল্প। এ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে মোট ৭৭ কোটি টাকা। এর মধ্যে ভারতীয় ঋণ ৫২ কোটি টাকা অবশিষ্ট ২৫ কোটি টাকা সরকারি বরাদ্দ। রেলওয়ের জন্য ৩০ বিজি ডিজেল ইলেক্ট্রনিক লোকোমোটিভ সংগ্রহ প্রকল্পে মোট ব্যয় হবে ৬০৮ কোটি টাকা। এর মধ্যে ভারতীয় ঋণ থেকে ৪২৫ কোটি আর সরকারি তহবিল থেকে ব্যয় হবে অবশিষ্ট ১৮৩ কোটি টাকা। রেলওয়ের জন্য ১০ সেট ডিজেল ইলেক্ট্রনিক মাল্টিপল ইউনিট (বগি) সংগ্রহের আরও একটি প্রকল্পে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৩৩১ কোটি টাকা, যার মধ্যে ভারতীয় ঋণ ২৩১ কোটি টাকা ও বাংলাদেশ সরকারের ১০০ কোটি টাকা। ভারতীয় ঋণে এ ৪টি প্রকল্পসহ মোট ২ হাজার ৩১৮ কোটি টাকার ১১টি প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে একনেক।
সভাশেষে পরিকল্পনামন্ত্রী একে খন্দকার সাংবাদিকদের ব্রিফিং দেন। এ সময় পরিকল্পনা বিভাগের সচিব মনজুর হোসেন উপস্থিত ছিলেন। পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, আমাদের নিজেদের ব্যবহারের জন্য বন্দরটি নির্মাণ করা হলে ভারতও এটি ব্যবহার করতে পারবে। তবে ভারতের অনুদান না দেয়ার কারণটি পরিকল্পনামন্ত্রী সুস্পষ্ট করে বলেননি।

No comments:

Post a Comment