Wednesday, 29 December 2010

বুড়িমারী সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশী নিহত

লালমনিরহাট ও পাটগ্রাম প্রতিনিধি

হাতিবান্ধার দইখাওয়া সীমান্তে শুক্রবার বাংলাদেশী যুবক হত্যার তিনদিনের ব্যবধানে গতকাল ভোর সাড়ে ৫টায় লালমনিরহাটের বুড়িমারী সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে বেলাল হোসেন (২৫) নামের আরও এক বাংলাদেশী নিহত হয়েছেন। এ সময় বাবু নামের আরও এক যুবক গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হয়েছেন। তাকে পাটগ্রাম স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। নিহত বেলাল হোসেনের লাশ বিএসএফ সদস্যরা টেনেহিঁচড়ে ভারতের অভ্যন্তরে নিয়ে গেছে। তিনি পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী বামনদল গ্রামের আফসার আলীর ছেলে। এদিকে বাংলাদেশী যুবককে গুলি করে হত্যা ও লাশ টেনেহিঁচড়ে ভারতের অভ্যন্তরে নিয়ে যাওয়ার ঘটনায় সীমান্তে টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে। গুলি করে যুবক হত্যা ও অন্য একজনকে গুলি করে আহত করার ঘটনায় কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছে বর্ডার গার্ড অব বাংলাদেশ (বিজিবি)। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নিহত যুবকের লাশ ফেরত না দেয়ায় ওই সীমান্তে বিজিডি-বিএসএফ মুখোমুখি অবস্থানে রয়েছে। এ ছাড়া বিনা উস্কানিতে বিএসএফের হাতে একের পর এক বাংলাদেশী হত্যার ঘটনায় সীমান্তবাসীরা বাড়িঘর ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিচ্ছেন বলে একাধিক সূত্র জানিয়েছে।
বিজিবি সূত্র জানায়, গতকাল ভোর সাড়ে ৫টায় পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী সীমান্তের ৮৩৮ নম্বর মেইন পিলার সংলগ্ন এলাকায় ভারতের ১০৪ বিএসবাড়ি ব্যাটালিয়নের বিএসএফ সদস্যরা বাংলাদেশ অভ্যন্তরে অনুপ্রবেশ করে বাংলাদেশী যুবক বেলালকে লক্ষ্য করে পরপর ৭ রাউন্ড গুলি চালায়। এতে বেলাল নিহত এবং বাবু নামের অন্য একজন আহত হন। একপর্যায়ে বিএসএফ সদস্যরা তার লাশ টেনেহিঁচড়ে ভারতের অভ্যন্তরে নিয়ে যায়।
এ ব্যাপারে লালমনিরহাট বিজিবির উপ-অধিনায়ক মেজর শফিক জানান, বিএসএফের গুলিতে নিহত বেলাল ও আহত বাবু গরু আনতে ভারতে যাওয়ার সময় বিএসএফ তাদের লক্ষ্য করে পরপর ৭ রাউন্ড গুলি চালায়। প্রচণ্ড রক্তক্ষরণের কারণে বেলাল হোসেন ঘটনাস্থলেই মারা যান। বিএসএফ সদস্যরা আন্তর্জাতিক সীমানা আইন লঙ্ঘন করে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে অনুপ্রবেশ করে তার লাশ টেনেহিঁচড়ে নিয়ে যায়। লাশ ফেরত চেয়ে গতকাল সকাল ১০টায় বিশেষ দূত মাধ্যমে ১০৪ বিএসবাড়ি বিএসএফ ব্যাটালিয়ন কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেয়া হয়েছে। তবে বিএসএফের পক্ষ থেকে লাশ ফেরতের ব্যাপারে কোনো সাড়া মেলেনি।

No comments:

Post a Comment